ঢাকা , ১৯ ২০২০
Crickpost
ছবি- সংগৃহীত

কঠিন হয়ে আসছে মুশফিকদের শ্রীলঙ্কা সফর

ক্রিকপোস্ট নিউজ | ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ৩:১৯ অপরাহ্ন | আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ৩:১৯ অপরাহ্ন

করোনা মহামারির এই সময়ে ইংল্যান্ড আতিথেয়তা দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তানকে। চলছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজও। একই পথে হাঁটছিল শ্রীলঙ্কাও। বাংলাদেশের সঙ্গে স্থগিত হওয়া তিন ম্যাচের সিরিজটা আয়োজনের সব ব্যবস্থাই হয়েছিল তবে এখন অনিশ্চয়তার মুখে সিরিজটি।

সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন সংবাদ সম্মেলনে জানান, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) এত শর্ত মেনে সফর করা সম্ভব না।

‘ওরা যেই নিয়ম কানুন বেঁধে দিয়েছে এটা ইতিহাসে বিরল। এটা দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ সম্ভব না। এই খবরটাই ওদের দিতে চাই। আমাদের প্রথম ম্যাসেজ এটা। এরপর তারা যদি বলে, আচ্ছা আসেন আলাপ আলোচনা করি কি কি মানা যায় না যায়। তখন আমরা বলবো কি কি শর্ত রয়েছে, কি কি শিথিল করতে হবে। সেটা পরে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে হতে পারে। কিন্তু এই অবস্থায় খেলা হবে না এটা তাদের বোঝা উচিৎ।’

লঙ্কান বোর্ডের দেয়া নীতিমালায় কী কী উল্লেখ ছিল সেটা বিসিবি প্রধান খোলাসা করে না বললেও জানা গেছে এসএলসি ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করেছে। জাতীয় দলের সঙ্গে হাই-পারফরম্যান্স দল মিলে মোট ৬৫ জনের দল যাওয়ার ব্যপারেও আপত্তি জানিয়েছে।

বিসিবি প্রধানের সংবাদ সম্মেলনের পর এসএলসি প্রধান শাম্মি সিলভা বলেন, ‘৭ দিনের কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি নিয়ে বিসিবি যেটা বলছে এনিয়ে তাদের সঙ্গে কোনো আলাপ হয়নি। এটা সত্য নয়। আমি জানি না কেন ৭ দিন বলা হচ্ছে।’

শাম্মি আরও বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক। এক্ষেত্রে নিয়ম না মানার কোনো সুযোগ নেই।

‘কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর দ্বারা নির্ধারিত। এটা আমাদের এখতিয়ারে নেই। যদি সফরে আসতে হয় তাহলে বাংলাদেশকে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।’

লঙ্কান বোর্ড প্রধান কঠোর অবস্থানে থাকলেও দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রী নামাল রাজাপাকসে জানান, বিষয়টি পুনর্বিবেচনার সুযোগ আছে।

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে রওয়ানা করার কথা রয়েছে বাংলাদেশ দলের। সফর যদি করাই হয় তবে ২৪ অক্টোবর থেকে সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে।

img
/* Home Page Gallery Script Start */ /* Home Page Gallery Script End */